Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player

তেলাকুচির পাতা যে পটলের পাতা – এই সত্য প্রকাশে অনীহাটা ঠিক কোন্ মহলের?



maxresdefault (1)

download (11)

বাংলাদেশমুভস, ২০ জুন, ২০১৭:: ২০০৯ সালের আগে আমি বাছ বিচার করেই মিষ্টি খেতাম। তো সে বছর হঠাৎ শরীর শুকিয়ে যায়, খালি মুত্র বিয়োগ হয় এবং দুর্বল হয়ে পড়ি। যেই দেখে – সেই আক্ষেপ করে । ভাই, এত হ্যান্ডসাম মানুষটি কী হয়ে গেলেন? তো কেউ কেউ বলে : ভাই, আপনার কি ডায়াবেটিস নাকি? আমার বংশে মায়ের চাচাতো ভাইয়ের সুগার কম বেশি গোত যাকে ডায়াবেটিস রোগী বলা হোত। কিন্তু একজন বলে তিনি তো আর আপনার রক্তের ধারার নয়। যাক অনেক কষ্ট পাবার ২০০৯ সালের ৪ঠা নভেম্বর বারডেম শাহবাগের বারডেম হাসপাতালে যাই এবং সেখানে গিয়ে দেখি রক্তে গ্লুকোজের পরিমান ২২ মিলি.. । তখন সেখানকার ডাক্তার প্রথমেই ইনসুলিন নেওয়ার প্রেসক্রিপশন দিলেন এবং সাথে আধা পিছ করে ডায়াপ্রো (খাবার পরে দিলেন)। তো একমাসের মধ্যে স্বাভাবিক হয়ে যায়। এরপর আর কোন দিন ডায়াবেটিস হাসপাতালে যায় নি। এলাকার এক ডাক্তার হুমায়ুন কবিরের কাছে ২০১০ সালে যাই। তো রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা ২০০৯ সালের মাত্রায় পৌছালে তিনি সকালে খাবারের আগে একটি ডায়াপ্রো এবং দুপুরে খাবারের পর মেটফরমিন প্রুপের একটি ওষুধ দেন। এতে দেখি খুব দ্রুত রক্তের সুগার কমে আসে, আমার আর ইনসুলিলিন পুশ করা লাগেনি। তার অর্থ হচ্ছে ইনসুলিলিন ইনজেকশন ছাড়াই ওষুধ খেলে একই ফল হয়। সেই থেকে ২০১৭, কোন দিনও বারডেমে যাইনি, ডায়াপ্রো আর ইনফরমেট খাই – কোন সমস্যা নেই, আলহামদুৃলিল্লাহ।
তবে এরপাশাপাশি আমি তেতুল, ‍হলুদের মত পরীক্ষিত বিকল্প প্রাকৃতিক উপকরণ তালাশ করার চেষ্টা করেছি। তিশির কথা শুনেছি, অশ্রুনের ছালের কথা শুনেছি – কিন্তু এর প্রভাব ঠিক কি পরিমান তা নির্নয় করতে পারিনি। তেলাকুচি পাতার কথা শুনেছি। এক ইন্সুরেন্স কর্মকতা বললেন – তিনি কোন ওষুদ খান না, তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে থেকে ২০ টাকার তেলােকচু বা তেলাকুচির পাতা নিয়ে যান এবং রান্নার করে সিব্জি হিসেবে খান, তার সুগার পুরোপুরি নিয়ণ্ত্রনে। আমিও বেশ কবার বাজারে এর পাতা খুজে বের করার চেষ্টা করেছি, পাইনি। তাহলে তেলাকুচির পাতা কি আসলেই খুব দুষ্প্রাপ্য?
আমার কৌতুহলী মন এবং সত্যকে জানার বাসনা তার একটি উত্তর দিল। নেট সার্চ দিয়ে দেখলাম – এই তেলাকুচির পাতা – আসলে পটোল গাছের পাতা – যে পটল গতকালও ১০ টাকায় ১ কেজি কিনেছি পল্রবীর মুসলিম বাজার থেকে। এটাই হচ্ছে : আল্রাহর দুনিয়ায় শয়তানের কারসাজি। তারা পটোল বিক্রি করতে দিচ্ছে- কিন্তু পটোলের পাতা বিক্রি করতে দিচ্ছে না।
আমার আল্রাহতো এত খারাপ না, তাহলে কেন তার সৃষ্টি? অবশ্য এটিই আল্লাহর ইচ্ছা। ইবলিসকে তো এ কারনেই সৃষ্টি করা হয়েছে। আল্লাহ তুমি যদি জান্নাত দাও, তো তোমার সৃষ্ট বান্দাদের এই বাদরামী ক্ষমা করে দিলাম। ( এখন তেলাকুচির পাতা যে পটল গাছের পাতা  – এ বিষয়ে কারও বিরুদ্ধ  মত থাকলে েআমাদেরকে জানান।) 


© Copyright
All rights reserved to Editor
Editor
Muhammad Shamim Akhter
Contact
Pallabi, Dhaka
Bangladesh
Mobile phone: 01536179630 / 01914042834
email: shamim2sh@gmail.com